ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ৯:৩৯ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

সাবেক কাউন্সিলের বিরুদ্ধে জমি দখলের চেষ্টা, নারীর শ্লিলতাহানীর অভিযোগ

  • আপডেট: Wednesday, August 30, 2023 - 3:39 pm

এইচ এম সাগর, নিজস্ব প্রতিবেদক: সাভারে সাবেক পৌর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা চলমান থাকার পাশাপাশি ভোগদখলে থাকা জমি জোরপূর্বক দখলের উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। এসময় কাউন্সিলের ছেলে রাজীব জমির মালিক ও তার স্ত্রীকে মারধরসহ শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছেন বলেও অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী। ৩০ আগস্ট বুধবার সকালে সাভারের আনন্দপুর এলাকায় সীমা জেনারেল হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকায় এ সন্ত্রাসী হামলায় ও মারধরের ঘটনা ঘটেছে।

এঘটনায় ভুক্তভোগী ইভান ইবনে আসাদ বিষয়টি জানিয়ে সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পরবর্তীতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সবাইকে যার যার অবস্থানে শান্তিপুর্নভাবে থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, পৌরসভার আনন্দপুর এলাকার মোঃ আরশাদ মিয়ার ছেলে মোঃ ইভান ইবনে আসাদ তার পিতার ৫ শতাংশ জমিতে সেমিপাকা ঘর নির্মান করে গ্যাস, বিদ্যুৎ সংযোগ গ্রহন করে নিয়মিত খাজনা ও পৌরকর পরিশোধ করে দীর্ঘদিন ধরে শান্তিপুর্নভাবে বসবাস করছেন। কিন্তু বেশকিছুদিন ধরে স্থানীয় একটি চক্র ভূয়া কাগজপত্র তৈরী করে জমিটি জোরপূর্বকভাবে দখলের পায়াতারা করে আসছে।

জমিটি নিয়ে আদালতে দেওয়ানী মামলা ২৪২/৩৪ চলমান থাকা সত্বেও বুধবার সকালে স্থানীয় মোঃ রাজীব (৩৫), আয়নাল হক গেদু (৫৮), মোঃ জামাল (৩৫) ও মোঃ বাবুসহ (৩৩) অজ্ঞাত পরিচত ৩-৪ জন নালিশী সম্পত্তিতে জোরপূর্বক প্রবেশ করে একটি সাইনবোর্ড স্থাপন করেন। এসময় তাদেরকে বাঁধা প্রদান করলে মোঃ ইভান ইবনে আসাদ (২৯) ও তার স্ত্রী মোসাঃ ফাতেমা জিয়াসমিনকে (২৮) এলোপাথারী কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে আহত করে।

একপর্যায়ে হামলাকারী রাজীব ফাতেমা জিয়াসমিনের চুলের মুঠি ধরিয়া মারতে মারতে মাটিতে ফেলে দেয় এবং তার পরিহিত কাপড়চোপড় টানাহেচরা করে শ্লীলতাহানি করে। এঘটনায় স্ত্রীকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে ইভান ইবনে আসাদকেও মারধর করে জামাকাপড় ছিড়ে ফেলে হামলাকারী রাজীব। এসময় তার ব্যবহৃত একটি স্মার্ট ফোনও ভেঙ্গে ফেলে হামলাকারীরা।

এঘটনায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়েরকারী ভুক্তভেগী ইভান ইবনে আসাদ বলেন, হামলাকারী রাজীবসহ অন্যরা ভূমিদস্যু এবং খারাপ প্রকৃতির লোক। তারা জোর করে আমাদের জমিতে সাইনবোর্ড দিয়ে জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। আজ সকালে তারা আমাকে এবং আমার স্ত্রীকে মারধর করেছে ও শ্লীলতাহানী করেছে। আমি এঘটনায় সঠিক বিচার চেয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি।

তবে হামলার বিষয়ে জানতে সাবেক কাউন্সিলর আয়নাল হক গেদুর মুঠোফোনে কল করেও তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হারুন অর রশিদ বলেন, হামলা চালিয়ে জোরপূর্বক সাইনবোর্ড লাগানোর অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযোগকারী বাহাদুরকে মারধর করে তার মোবাইল ভেঙ্গে ফেলেছে আয়নাল হক গেদু ও তার লোকজন। এঘটনায় উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান তিনি।