ঢাকা | মে ২১, ২০২৪ - ৫:৪২ অপরাহ্ন

শিরোনাম

কাশিমপুরে ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী নিখোঁজ, ৮ দিনেও খোঁজ পাইনি পরিবার

  • আপডেট: Sunday, October 1, 2023 - 5:44 pm

সিনিয়র রিপোর্টার।।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কাশিমপুর মেট্রো থানার ২ নং ওয়ার্ডের ৪নং গেট সংলগ্ন এলাকা থেকে সিনহা নামের ১২ বছরের এক মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে ।

অপহরণের ঘটনায় কিশোরীর বাবা গত ২৪ সেপ্টেম্বর রাতে কাশিমপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অপহৃত মোহনা আক্তার সিনহা (১২) নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া থানার বালাইশিমুল গ্রামের মোঃ কামরুজ্জামান কামাল মেয়ে। সে বর্তমানে মা-বারর সাথে কাশিমপুরে ভবানীপুর মামুন নগর (স্বাধীন এর বাড়ীর ভাড়াটিয়া) হিসাবে বসবাস করেন। সে স্থানীয় কফিল উদ্দিন পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

সিনহার বাবা কামরুজ্জামান কামাল বলেন, গত ২৪ তারিখ দুপুর অনুমানিক বেলা দুইটার দিকে আমার মেয়ে মোহনা আক্তার সিনহা বাসার ৩য় তলা হতে নিচে দোকানে যায় সাবান কেনার জন্য। পরবর্তী সময়ে আমার মেয়ে বাসাতে ফিরে না আসলে আত্মীয় স্বজনের বাড়ী সহ আশেপাশের সম্ভাব্য বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি
করিতে থাকি। খোঁজাখুজির একপর্যায়ে বিকাল অনুমানিক ৩.০০ টার দিকে ০১৭৬৭০৫৫৪০৫ নম্বর থেকে আমার মোবাইল ফোনে কল করিয়া বলে যে, আপনার মেয়ে মোহনা আক্তার সিনহা চাকুরী করার জন্য আমার কাছে
আছে এবং আপনি ঢাকার উত্তরা, আব্দুল্লাহপুর রেল লাইন পার হয়ে ট্রান্সমিটার মোড়ে আসেন বলিয়া কলটি কেটে দেয়। পরবর্তীতে রাত অনুমানিক
০৮:০০ দিকে আমি উক্ত স্থানে গিয়ে উপরোক্ত নম্বরে কল করিয়া আমার মেয়ের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করিলে অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তি আমাকে বিভিন্ন স্থানে যেতে বলে এবং বিভিন্ন তালবাহানা মূলক কথা বলে কল কাটিয়া দেয়। পরবর্তীতে গত ২৫ সেপ্টেম্বর সকাল আনুমানিক ০৯.১৪ মিনিটে আমার কাছে ০১৯৩১-৪৭৬৪৫৭ নাম্বার হতে আরও একটি আসে এবং বলে আপনার মেয়ে আমাদের কাছে জিম্মি আছে ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা দিন তাহলে আপনার মেয়েকে ফেরত পাবেন। আর যদি টাকা না দেন তাহলে আমরা আপনার মেয়েকে মেরে ফেলবো বলে হুমকী প্রদান করে এবং আমাকে নগদ নাম্বার- ০১৯৩১-৪৭৬৪৫৭, বিকাশ নং-
০১৯৭০-৬০৭৭৮৮ দিয়ে টাকা পাঠাতে বলে।

অপহরনের বিষয়ে কাশিমপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করার পর মেয়েটির বাবা কামরুজ্জামান কামাল কান্নাজনিত কন্ঠে আরও বলেন, আজকে আটদিন হলো আমার মেয়ে অপহরন হয়েছে। এখনও পর্যন্ত পুলিশ আমার মেয়েকে উদ্ধার করতে পারে নি। অপহরণকারীরা একেক বার একেক নম্বরদিয়ে আমার কাছে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করছে। অথচ পুলিশ এখন পর্যন্ত আমার মেয়েকে উদ্ধার করতে পারে নি। অপহরণকারীরা যে কোন সময় আমার মেয়েকে বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে । আমার মেয়েকে যেন অক্ষত অবস্থায় ফিরে পাই সেজন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও গণমাধ্যম কর্মীদের (আপনাদের) সহযোগিতা কামনা করছি এবং যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে কাশিমপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ সৈয়দ মো. রাফিউল করিম বলেন, অপহরণের ঘটনায় অভিযোগ নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে অপহরণকৃত শিশুকে উদ্ধার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।