ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ১০:০১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

সেবা নিয়ে গুচ্ছ পরিক্ষার্থীদের পাশে পিসিসিপি কেন্দ্রীয় কমিটি

  • আপডেট: Saturday, April 27, 2024 - 11:10 am

জাগো জনতা অনলাইন।। 

রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধানে GST গুচ্ছভুক্ত A- ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৭ এপ্রিল) দুপুর ১২ টা থেকে ১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্র ও ৮ টি উপ-কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

 

এ উপলক্ষ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ (পিসিসিপি) কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ পিসিএনপি’র কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান কাজী মজিবর রহমানের নির্দেশনায় শিক্ষার্থীদের জন্য রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সহ অন্যান্য কেন্দ্রে “তথ্য প্রদান ও শিক্ষার্থী সহায়তা কেন্দ্র”র আওতায় নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে পিসিসিপি।

পিসিসিপি’র কর্মসূচির মধ্যে ছিল: তথ্যকেন্দ্র থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ, পানি, খাবার স্যালাইন, টিস্যু বিতরণ, পরীক্ষাকেন্দ্র পরিচিতির জন্য সার্বক্ষণিক স্বেচ্ছাসেবক নিয়োজিত রাখা, শিক্ষার্থীদের চলাচলের সুবিধার্থে ‘সিএনজি ও বাইক সার্ভিস’, সুপেয় খাবার ঠন্ডা শরবতের ব্যবস্থা, পরীক্ষা কেন্দ্রে বহন অনুপযোগী জিনিসপত্র রাখার ব্যবস্থাসহ নানা প্রদক্ষেপ বাস্তবায়ন করেছে সংগঠনটি।
এসময় উপস্থিত ছিলো পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ (পিসিসিপি’র) কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ হাবীব আজম, প্রচার সম্পাদক মোঃ শহিদুল ইসলাম,
রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ এন্ড মেরিন রির্সোসেস টেকনলোজি বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ নুরল আলম, মোঃ গোলাম রসুল সোহাগ, রাঙামাটি পৌর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম বাবু, সদস্য সাইফুল ইসলাম, রাঙামাটি সরকারি কলেজ শাখার যুগ্ন আহ্বায়ক আশিকুর রহমান, কলেজ শাখার নেত্রী চাঁদনী আক্তার প্রমুখ।

পিসিসিপি কেন্দ্রীয় সূত্র জানায়, এই সেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে সাধারণ শিক্ষার্থীরা অনেক উপকৃত হয়েছে।
বিশেষ করে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য সুপেয় শরবত এর ব্যবস্থা করায় উপস্থিত সকলে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানায় পিসিসিপি’র প্রতি। এসময় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা তিব্র তাপদাহে ক্লান্ত পুলিশ সদস্যদেরও সুপেয় শরবত পান করান পিসিসিপি’র নেতাকর্মীরা। এতে তারাও ধন্যবাদ জানান উপস্থিত নেতৃবৃন্দদের।

শিক্ষার্থীদের জন্য “তথ্য প্রদান ও শিক্ষার্থী সহায়তা কেন্দ্র”র আওতায় পিসিসিপি’র কার্যক্রম সম্পর্কে জানাতে গিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ পিসিসিপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ হাবীব আজম বলেন, গুচ্ছ পরীক্ষায় অংশ নিতে তিন পার্বত্য জেলা সহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে অনেক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা আসেন। তাদের যেনো কোন সমস্যায় পড়তে না হয়, তারা যেন না চাইতেই সকল সহায়তা পেয়ে থাকে তিব্র তাপদাহে যাতে কষ্ট পেতে না হয় সেজন্য আমরা পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ পিসিসিপি কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে নানাবিধ প্রচেষ্টা করে যাচ্ছি।

তিনি আরো জানান, পার্বত্য চট্টগ্রামের বাঙালিদের প্রতি নানা বৈষম্য, বঞ্চনা ও জুলুমের বিরুদ্ধে সাধারণ শিক্ষার্থীদের এগিয়ে আসা এখন সময়ের দাবি। তাই জনসংখ্যা অনুপাতে সর্বক্ষেত্রে পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগোষ্ঠীর সাংবিধানিক অধিকার আদায়ে ছাত্র সমাজকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। পাহাড়ের সকল সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীদের স্বার্থ রক্ষায় নিবেদিত “পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাত্র পরিষদ (পিসিসিপি)” একটি দেশ প্রেমিক ও জাতি, ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীদের সংগঠন। এই সংগঠন শিক্ষার্থীদের ও সাধারণ মানুষের অধিকার রক্ষার পাশাপাশি পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতিহত করতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। এই সংগঠনের কার্যক্রম পাহাড়ের আনাচে কানাচে প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছড়িয়ে পড়ার পাশাপাশি দেশের প্রধান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, পার্বত্য চট্টগ্রামের একমাত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছড়িয়ে পড়ছে। এই সংগঠনের মাধ্যমেই পাহাড়ে আলো আসবে, পাহাড়ে শান্তির সু-বাতাস বইবে।

‘উল্লেখ্য’ রাবিপ্রবি ক্যাম্পাসসহ মোট আটটি কেন্দ্রে আট হাজার ৫৮২ জন পরীক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে।