ঢাকা | এপ্রিল ২১, ২০২৪ - ১:৫৭ অপরাহ্ন

সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এনসিডি কর্ণারের সুফল পাচ্ছে সাধারণ মানুষ

  • আপডেট: Sunday, March 31, 2024 - 12:52 pm

এম,ইব্রাহিম খলিল, সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি :

চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গ্রামীণ অবহেলিত মানুষের চিকিৎসা সেবা দিতে  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন ডাক্তার মো:নুরুদ্দিন রাশেদ  । তিনি এই হাসপাতালের দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে চিকিৎসা সেবা বদলে যেতে শুরু করে। মানসম্মত চিকিৎসা ও চিকিৎসার গুনগত মানে  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর উপরে উপজেলার দরিদ্র, অবহেলিত মানুষের আস্থা ফিরে পেয়েছে। আগে যেরকম অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে, বর্হিবিভাগে ঔষুধ কম দেওয়া, রোগীদের সাথে চিকিৎসকদের অসৈৗজন্যমূলক আচরণ ইত্যাদি কারণে মানুষ এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা নিতে আসতে চাইতো না।  কিন্তু পূর্বের তুলনায় চিকিৎসা সেবা ভালো হওয়ায় এখানে রোগীর চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে প্রতি দিন হাজার রোগী সেবা নিচ্ছে ।
৩১  মার্চ   (রবিবার) সকালে সরজমিনে এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনে গেলে দেখতে পাওয়া যায় ৫০ শয্যর এই হাসপাতালে রোগী ভর্তি আছে অনেক বেশী । এত রোগীর চাপ সামাল দিতে কতৃপক্ষকে তাই নিতে হচ্ছে বাড়তি দায়িত্ব । সহযোগী কর্মচারী সহ নার্স ৩০ জন, ডাক্তার প্রায় ২৮ কনসালটেন্ট দিয়ে চলছে চিকিৎসা সেবা। চিকিৎসা সেবা ভালো হওয়ার কারণে রোগী বেড়ে যাওয়ায় এখানে লোকবল বাড়ানোর প্রয়োজন বলে ভূক্তভোগী রোগীরা মনে করছেন।  হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়
চিকিৎসা সেবার ভিতরে রয়েছে গর্ভবতী মায়েদের জন্য নরমাল ডেলিভারী মাসে শতকের উর্ধে নরমাল ডেলিভারীর  পাশাপাশি সিজারে ঝুকিঁপূর্ণ মায়েদের জন্য ডেলিভারী হচ্ছে।
এনডিসি কর্ণার এ রেজিষ্ট্রেশনের কৃত  রোগী ১ মাসের বিনামূল্যে ঔষুধ পাচ্ছে চিকিৎসার পাশাপাশি । বিনামূল্যে ডায়বেটিকস পরীক্ষা, চক্ষু সেবা, যক্ষা ও কুষ্ট রোগীদের জন্য চিকিকৎসার পাশাপাশি বিনামূল্যে ঔষুধ প্রদান। রয়েছে ব্লাড টেষ্ট, এক্সরে, ইসিজি, আলটাসনোগ্রাফি নামমাত্র মূল্যে করার ব্যবস্থা। বিনামূল্যে টিকা কার্যক্রম (ইপিআই) ব্যবস্থা। রয়েছে অপুষ্টি বাচ্চাদের জন্য আলাদা কর্ণার যার মাধ্যমে এগুলো বাচ্চাদের জন্য আলাদা চিকিৎসা ব্যবস্থা ও পুষ্টির যোগান দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম। এই হাসপাতালে বিনামূল্যে রয়েছে রোগীদের জন্য ভায়া টেষ্ট । মহিলাদের জন্য রয়েছে জরায়ুর মুখে ক্যান্সার শনাক্তকরণে আলাদা চিকিৎসা ব্যবস্থা।
বহি: বিভাগের হাজার হাজার রোগীর লাইন হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা নিয়ে কথা  বলেন পারুল আকতার এই  প্রথম শ্বাসকষ্টে ঔষধ স্প্রে ফ্রি পেয়েছেন,অনেক কষ্টে স্প্রে কিনতে হয় খুশি দোয়া করেন সরকারের সফলতার জন্য  ফ্রি ঔষধ পাওয়ায়।
  নুরুল ইসলাম  বলেন সত্যিই এখানে চিকিৎসা সেবা অনেক ভালো। এই হাসপাতালের ডাক্তাররা আমাদের ভালো চিকিৎসা দিচ্ছে। এই হাসাপাতাল মোটামুটি পরিস্কার পরিচ্ছন্ন আছে। আমি এই হাসপাতালের চিকিৎসা সেবায় সন্তুষ্ট” শ্বাসকষ্ট ঔষধ স্প্রে ফ্রি পাইলাম সরকারের জন্য দোয়া করেছি  ।
হাসপাতালটিতে বর্হিবিভাগে গেলে সেখানে দেখা যায় ডাক্তারদের কাছে চিকিৎসা সেবা নিতে সাধারণ রোগীদের লম্বা লাইন হাসপাতালের গেট পর্যন্ত ঠেকে গেছে। জানা যায় এই বর্হিবিভাগে প্রতিদিন গড়ে ৯০০-১০০০ জন মানুষ চিকিৎসা সেবা নিয়ে থাকেন।  রোগের ধরন অনুযায়ী এখানে ভিন্ন ভিন্ন চিকিৎসক  চিকিৎসা সেবা  ও প্রেসক্রিপশন এবং হাসপাতাল থেকে বিনামূল্যে  ঔষুধ দেওয়া হচ্ছে বর্হিবিভাগে । জোহান আকতার ছোহা (৮) এসেছে  দাঁত পেলতে নানার সাথে এসেছে  দাঁ পেলেছে ফ্রি ঔষধ নিয়ে চলে যাচ্ছে।
  কয়েকজন সেবা গ্রহিতাদের সাথে কথা বললে তারাও জানান এই হাসপাতাল থেকে বিনামূল্যে ভালো ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসার পাশাপাশি সরকারি ঔষুধ  দেওয়া হয় তাই এই হাসপতালের জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এইরকম ভাবে চিকিৎসা সেবা অব্যহত থাকুক কামনা করেন চিকিৎসা সেবা নিতে আসা  নারী  পুরুষ ।
এই বিষয়ে জানতে চাইলে  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর  প্রধান ডাক্তার নুরুদ্দিন রাশেদ  বললে  হাসপাতালের দায়িত্ব নিয়ে আসি  অপরিষ্কার ছিল  হাসপাতালের সামনে ও পিছনে এখন কত সুন্দর হয়েছে।  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সরকারি বিধি মোতাবেক পরিচালনা করা হয়। এখানকার চিকিৎসা সেবা কিভাবে বৃদ্ধি করা যায় সেটি নিয়ে আমি পরিকল্পনা করতে থাকি। আমি যখন এই হাসপাতালে নতুন আসি তখন এখানে রোগী খুবই কম ছিলো। তারপরে সময় যাওয়ার সাথে সাথে  চিকিৎসা সেবা র  মান ভালো হতে থাকলো  এখানে রোগী বাড়তে থাকলো।  এই হাসপাতাল টি  ৫০ শয্য কিন্তু আমাদের এখানে রোগী ভর্তি থাকে অনেক বেশি । তাই আমি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আর্কষণ করছি এই হাসপাতালটি যাতে ১০০ শয্যায় উন্নতিকরণ করা হয়।  মাননীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী মহোদয় আশ্বাস দিয়েছেন।
এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অধিনে পরিচালনায় ২৩ টি কমিউনিটি ক্লিনিক সেবা দেওয়া হচ্ছে। কুমিরা ইউনিয়ন  উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে  সেবা দিয়ে যাচ্ছে।
তাছড়া উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের আওতায়  ৮ ইউনিয়ন  প প কেন্দ্রে২৪ ঘন্টা ডেলিভারি সহ  চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে। যার মাধ্যমে হাজার হাজার দরিদ্র অসহায় মানুষ চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে। সোনাইছড়িত দশ শয্যার মা ও শিশু  হাসপাতাল সেবা পাচ্ছে। তাই আমি আপনাদের মাধ্যমে যথাযথ কতৃপক্ষের দৃষ্টি আর্কষন করতে চাই এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স যাতে ১০০ শয্যায় উন্নতিকরণ করা হয়।