ঢাকা | এপ্রিল ২১, ২০২৪ - ৫:১৮ অপরাহ্ন

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে গাজীপুরে মানববন্ধন

  • আপডেট: Monday, March 4, 2024 - 5:45 pm

ইউসুফ আলী।।

র‍্যাব এর অভিযানে কাশিমপুর থানা এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিল উদ্ধার নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়ার প্রতিবাদে ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহিন মোল্লার বিরুদ্ধে গাজীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ ও মানববন্ধন করেন সাংবাদিকগন।

সোমবার (৪ মার্চ) দুপুরে গাজীপুর জেলা প্রশাসক কার্যলয়ের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন কাশিমপুর থানা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও বাংলা টিভির কাশিমপুর প্রতিনিধি মোঃ হাসান সরকার। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কাশিমপুর থানা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও সাপ্তাহিক বার্তা বাজার প্রত্রিকার সম্পাদক মোঃ মারুফ হোসেন।

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন কাশিমপুর থানা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি আরিফুল ইসলাম খান শাহিন, সহ-সভাপতি বিল্লাহ হোসেন সাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক মোত্তাসিম সিকদার রাজীব, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, দপ্তর সম্পাদক মোঃ ইউসুফ আলী খান, অর্থ সম্পাদক মোঃ জামাল আহম্মেদ, সেকেন্দার আলী, হাবিবুল বাসার সুমন, শাকিল আহম্মেদ সুজন, নাসির উদ্দিন, ইব্রাহিম খলিল, নাজমুল ইসলাম, সৌরভ হোসেন, হাসমত , জসিম খান, মোঃ আমিনুল ইসলাম, মোঃ আরমান হোসেন, মোঃ শাহীন, মোঃ শাহ্ আলম, এস কে শুভ, হেলেনা আক্তার সহ প্রমুখ।

উল্লেখ্য যে গত ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ তারিখে র‍্যাব-১ এর অভিযানে ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহীন মোল্লার মালিকাধীন গোডাউন থেকে ৯৫২ পিস ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। তার পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ করায়। পরে কাউন্সিলর শাহিন মোল্লা তার নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করেন এবং তিনি দাবি করেন উক্ত গোডাউনটি তার নয়, তার শ্বশুরের। কিন্তু ১৩১৯৬ নং একটি সাব-কবলা দলিলে দেখা যায় উক্ত জমিটি তার এরং তার স্ত্রীর নামে দলিল করা। তিনি আরো দাবি করেন তার নামে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। তারই প্রেক্ষাপটে কাউন্সিলর শাহীন মোল্লা তিনজন সংবাদ কর্মীর নামে ১১/০২/২৪ ইং তারিখে এক কোটি টাকার একটি মানহানি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। যাহার মামলা নং ১৪৪/২৪।

উল্লেখিত যে গত ০৩/০২/২৪ইং তারিখে যে সংবাদ প্রকাশ করা হয় তা সত্য। কারণ উক্ত গোডাউনটির মালিক ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহিন মোল্লা ও তার স্ত্রীর নামে দলিল পাওয়া যায়। তাই উক্ত গোডাউনটি তার নিজের বলে প্রমাণিত হয়। তাছাড়া সাংবাদিকরা তথ্য সংগ্রহ করতে সরেজমিনে গেলে এলাকাবাসী বক্তব্যেও বলেন এই গোডাউনটি ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহিন মোল্লার নামে এবং সেই গোডাউন থেকে ৯৫২ পিস ফেনসিডিল উদ্ধার করে। সেই ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় চারজনকে গ্রেফতারও করে র‍্যাব -১।

এসময় বক্তারা কাউন্সিলর শাহিন মোল্লার দায়ের করা দৈনিক জনবানী পত্রিকার কাশিমপুর থানা প্রতিনিধি মো: জামাল আহম্মেদ, আলোকিত সকালের প্রতিনিধি সৌরাভ হোসেন, নিউজ টোয়েন্টি ওয়ান এর স্টাফ রিপোর্টার শাকিল আহমেদ সুজনের বিরুদ্ধে দায়ের করা ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান। তারা দুইদিন সময় দিয়ে বলেন ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিল শাহীন মোল্লা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করলে আমরা আরো কঠিন আন্দোলনে যেতে বাধ্য হব।

সাংবাদিকরা প্রশাসনের কাছে উক্ত বিষয়ে সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান। মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা শেষে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।