ঢাকা | জুলাই ১৮, ২০২৪ - ৪:০৮ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

জমি দখল ও নির্মাণ কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ আটক ২

  • আপডেট: Sunday, November 5, 2023 - 12:56 pm

সিনিয়র রিপোর্টার

আশুলিয়ার তাজপুরে অন্যের জমিতে নির্মান কাজে বাধা, শ্রমিদের মারধর, লুটপাট ও জমি দখলের পায়তারার অভিযোগে ইকবাল সরকার ও দেলোয়ার সরকার নামে ২ জন ভূমিদস্যু কে আটক করেছে আশুলিয়া থানা পুলিশ।

(৫ নবেম্বর) রবিবার সকালে ঢাকার আশুলিয়া থানা তাঁজপুর গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

আটক কৃত দুই ব্যক্তি আশুলিয়ার তাঁজপুর গ্রামের কছিম উদ্দিন সরকারের ছেলে ইকবাল হোসেন সরকার (৪০) দেলোয়ার হোসেন সরকার (৩৫)।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, আশুলিয়া থানার জিরাবো এলাকার মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী হাবিবুর রহমানের ছেলে দেওয়ান রাজু আহমেদ (৪৫) একই থানার তাঁজপুর মৌজার আরএস ১৬২ দাগের ১৯ শতাংশ জমির ক্রয় সূত্রে মালিক হয়ে দীর্ঘদিন যাবত দখল সুত্রে জমিতে আধাপাকা ভবন নির্মান করে বাউন্ডারী ওয়াল দিয়ে ভোগ দখল করে আসছে।

এমতাবস্থায় অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন সরকার ও দেলোয়ার হোসেন সরকারের বাড়ির পাশে জমি হওয়ায় তারা জমির মালিকে কাছে চাঁদা দাবি করে আসছিল।

চাঁদা না দেওয়ায় জমিটি দখল করতে চেষ্টা চালায় এবং দেওয়ান রাজুর কেয়ারটেকারকে মারধর করে রাতের আঁধারে বাউন্ডারী ওয়াল ভেঙ্গে ফেলে অভিযুক্ত ইকবাল গং।

গতকাল (৪ নভেম্বর) দুপুরে উক্ত জমিতে বাড়ির কেয়ারটেকার এবং একই থানার তৈয়বপুর গ্রামের আব্দুস সামাদ প্রামানিকের ছেলে শ্রমিক সর্দার মো: আব্দুল আলিম (৪৩) অন্যান্য শ্রমিকদের সাথে নিয়ে জমিতে সংস্কার ও নির্মান কাজ করতে যান।

এ সময় অভিযুক্ত সন্ত্রাসী ও ভূমি দস্যু ইকবাল হোসেন সরকার ও দেলোয়ার হোসেন সরকার সহ ৪/৫ জন দুর্বৃত্তদের সাথে নিয়ে আব্দুল আলিম ও কেয়ারটেকার জাকিরের উপর হামলা চালায়।

এ সময় তারা আলিমকে লোহার রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে এবং সন্ত্রাসী ইকবাল লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে আলিমের ডান হাত ভেঙ্গে ফেলে। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা আব্দুল আলিম ও জাকিরকে হাসপাতালে নিয়ে যান।
এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় আজ (৫ নভেম্বর) ২০২৩ ইং তারিখ আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয় যার মামলা নং-৯।

মামলা দায়েরের পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন সরকার ও দেলোয়ার হোসেন সরকারকে তাঁজপুর থেকে গ্রেফতার করে আশুলিয়া থানা পুলিশ।

এব্যপারে দেওয়ান রাজু আহমেদ জানান, দির্ঘদিন যাবৎ ইকবাল ও দেলোয়ার গং সহ আরো ভ‚মি দস্যু ও সন্ত্রাসীরা আমাকে নানাভাবে হয়রানী করে আসছে এবং আমার কাছে তারা বিভিন্ন সময় চাঁদা দাবি করেছে আসছে। আমি তা দিতে রাজী না হওয়ায় আমার উপর ক্ষ্রীপ্ত হয়েই তারা এহামলা চালায়।

এবিষয়ে আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক শ্রী ভজন রায় জানান থানায় মামলা দায়ের হওয়ার পর অভিযুক্ত দুইজনকে আটক করা হয়েছে এবং অন্যান্য অভিযুক্তদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।