ঢাকা | মে ২৩, ২০২৪ - ৮:১০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

সাজেকে অপহৃত সেই ঢাবি শিক্ষার্থী দ্বীপিতা চাকমাকে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

  • আপডেট: Thursday, September 7, 2023 - 8:19 am

বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি : পর্যটনকেন্দ্র সাজেক ভ্যালিতে যাওয়ার পথে দ্বীপিতা চাকমা (২৫) নামে অপহৃত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি চৌকস দল।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক পর্যটনকেন্দ্রে বেড়াতে যাওয়ার পথে এই ছাত্রীকে অপহরণ করে আঞ্চলিক বিচ্ছিন্নতাবাদী একটি সন্ত্রাসী সংগঠন।

গত বুধবার (৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ) আনুমানিক দুপুর ১২ ঘটিকায় অপহরণ ঘটনা ঘটে। খাগড়াছড়ি দীঘিনালা-সাজেক রোডের শিজকছড়া নামক এলাকায় থেকে গাড়ি গতিরোধ করে ১৪/১৫ জনের একটি সশস্ত্রদল অপহরণ করে নিয়ে যায়। দ্বীপিতা চাকমা (২৫), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) লোকপ্রশাসন বিভাগের ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী। বর্তমানে সে একই বিভাগের স্নাতকোত্তরে (মাস্টার্স) অধ্যয়নরত আছেন। পাহাড়ি শিক্ষার্থী দ্বীপিতা চাকমা খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার শীতেন্দ্র বিকাশ চাকমার মেয়ে।

দ্বীপিতা চাকমা অপহরণের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সহ সর্বত্র বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ পদাতিক ডিভিশনের অধীনস্থ খাগড়াছড়ি রিজিয়নের আওতাধীন বাঘারহাট-সাজেক সেনা জোনের একদল চৌকস সেনাসদস্য উদ্ধার অভিযানে নামে। ৭ ঘন্টার রুদ্ধশ্বাস অভিযানের একপর্যায়ে সাজেক ইউনিয়নের দাড়িপাড়া বুনো আদাম এলাকা থেকে তাকে সেনাবাহিনী উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। বর্তমানে দ্বীপিতা চাকমা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হেফাজতে রয়েছে।

দ্বীপিতা চাকমা কে উদ্ধার করার খবরেই তার পিতা-মাতা, আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুবান্ধব সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নেটিজনরা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। এবং পার্বত্য চট্টগ্রামে বিচ্ছিন্নতাবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনে সেনাবাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা করেন।

উল্লেখ্য যে, পার্বত্য চট্টগ্রামে পাহাড়ি মেয়েরা বাঙ্গালী যুবকদের সঙ্গে কথা, চলাফেরায়, কিংবা প্রেম-বিবাহ করলে তাকে আঞ্চলিক সন্ত্রাসী সংগঠন কর্তৃক অপহরণ পূর্বক গণধর্ষণ সহ হত্যা করা হয়। মূলত এই থেকে উক্ত পাহাড়ি ছাত্রী স্বজাতি কর্তৃক অপহরণের শিকার হয়। আঞ্চলিক সন্ত্রাসীদের এই চরম অন্যায় দীর্ঘদিন ধরে করে চলে আসলেও মানবাধিকার সংগঠন এবং নারীবাদীরা রহস্যজনকভাবে নিশ্চুপ।