ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ৯:৩৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

জমি নিয়ে বিরোধে চাচাকে কুপিয়ে জখম

  • আপডেট: Monday, September 4, 2023 - 4:50 am

ইউসুফ আলী খান।।

গাজীপুর মহানগরের কাশিমপুর মেট্রো থানার ২ নং ওয়ার্ডের লস্কর চালায় জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে চাচাকে কুপিয়ে রক্তাক্ত যখম করেছে ভাতিজা।

শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) বেলা আনুমানিক ১.৩০ মিনিটে গাজীপুর জেলার কাশিমপুর থানার ২ নং ওয়ার্ড লস্কর চালা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী মোঃ ফারুক মিয়া (৪৬) গাজীপুর জেলার কাশিমপুর থানার ২ নং ওয়ার্ড লস্কর চালার মৃত আকবর আলীর ছেলে।

অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হলো গাজীপুর জেলার কাশিমপুর থানার ২ নং ওয়ার্ড লস্কর চালার মোঃ মিন্টু মিয়ার ছেলে মোঃ মেহেদী হাসান ইমন (২২), লস্কর চালার মৃত আকবর আলীর ছেলে মোঃ মিন্টু মিয়া (৪১), একই এলাকার আলাল উদ্দিন এর ছেলে আলমগীর হোসেন (৩২) এবং মৃত নছুমুদ্দিন এর ছেলে মোঃ আলাল উদ্দিন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায় যে, ভুক্তভোগী ফারুক মিয়ার সাথে জমির সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে তারই আপন ছোট ভাই মিন্টু মিয়ার সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। তারই সূত্র ধরে ঘটনার দিন দেশীয় অস্ত্র ধারালো দা, লোহার রড সহ ফারুক মিয়ার ওপর হামলা করে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।

ভুক্তভোগী ফারুক মিয়া বলেন, জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আমার ভাইয়ের সাথে দীর্ঘদিনের একটা শত্রুতা চলছিল। ঘটনার দিন শনিবার দুপুর আনুমানিক একটা ৩০ মিনিটের সময় আমার ছোট ভাই মিন্টু মিয়া তার ছেলে মেহেদী হাসান ইমন সহ কয়েকজন আমার বাসায় এসে আমাকে এবং আমার পরিবারের সবাইকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আমি এর প্রতিবাদ করতে গেলে মিন্টু মিয়া সহ কয়েকজন আমাকে দেশীয় অস্ত্র লোহার রড, লাঠি দিয়ে মারতে থাকে। এ সময় আমার ভাতিজা ইমন আমাকে হত্যা করার জন্য ধারালো দা দিয়ে কোপ দেয়। ভাগ্যবশত সেই কোপ আমার কপালে লাগে। তখন আমার মেয়েরা আমাকে বাঁচাতে আসলে তাদেরকেও মারধোর করা হয়। এ সময় আমাদের ডাক চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন এসে আমাকে এবং আমার মেয়েদেরকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে কাশিমপুর থানার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ রাফিউন করিম রাফি বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ফারুক বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায় করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।